‘পরবর্তী দেবযানী’ হওয়ার আতংকে ভারতীয় কূটনীতিকরা

devyani-khobragadeপরবর্তী দেবযানী হওয়ার আতংকে দিন কাটছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত ভারতীয় কূটনীতিকদের। সম্প্রতি নিজেদের পরিচারক-পরিচারিকাদের মার্কিন আইনের আওতার বাইরে আনার জন্য নিজ-দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং অর্থমন্ত্রীর কাছে ভিসা পরিবর্তনের আবেদন জানিয়েছেন তারা। ভারতীয় অর্থমন্ত্রীর কাছ থেকে প্রয়োজনীয় ছাড়পত্র পাওয়া না গেলে নিজেদের পরিচারক-পরিচারিকাদের তারা দেশে ফেরত পাঠাবেন বলেও মনস্থির করেছেন। খবর পিটিআই ও জিনিউজের।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পাঠানোর সময় ভারতীয় কূটনীতিকদের পরিচারক-পরিচারিকাদের জন্য এ-থ্রি ভিসা বরাদ্দ করা হয়, যার ফলে তারা মার্কিন আইনের আওতায় পড়ে যান। আর তাতেই আতংক-আশংকা বেড়ে গেছে ভারতীয় কূটনীতিক সম্প্রদায়ের। ভিসার ধরন পরিবর্তন করে তাদের পরিচারক-পরিচারিকাদের ভারতীয় আইনের আওতায় আনার জন্য তারা দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রীর উপর চাপসৃষ্টি করেছেন। এ কাজ করতে হলে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর ছাড়পত্র লাগে। তাই ইতিমধ্যেই অর্থমন্ত্রীর মূখ্যপাত্রদের সঙ্গে আলোচনা শুরু করে দিয়েছেন ভারতীয় পররাষ্ট্রসচিব সুজাতা সিং।

দেবযানীর পরিচারিকা সঙ্গীতা রিচার্ডকেও এ-থ্রি ভিসা দেওয়া হয়েছিল। দেবযানী খোবরাগাড়ের বিরুদ্ধে মূল অভিযোগটাই ছিল, পরিচারিকা সঙ্গীতা রিচার্ডকে তিনি মার্কিন আইনের নির্ধারিত পারিশ্রমিকের তুলনায় অনেক কম বেতন দিতেন এবং সঙ্গীতার ভিসার আবেদনে তিনি বেআইনি ভাবে পারিশ্রমিকের অঙ্ক বেশি দেখিয়েছেন।

গত শুক্রবার পূর্ণ কটনৈতিক রক্ষাকবচ নিয়ে নিউ ইয়র্ক থেকে ভারতে ফেরেন ৩৯ বছরের দেবযানী। তবে তার স্বামী এবং সাত ও চার বছর বয়সি দুই শিশুকন্যা এখনও নিউ ইয়র্কেই।