সরকার গঠন শেষ হতেই সুস্থ এরশাদ!

ershad

ershadঅবশেষে হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদের অসুখ সেরেছে। হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ছেন তিনি। প্রায় একমাস পর ফিরেছেন বারিধারায় নিজ বাসভবনে। রোববার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে তিনি তার বাসায় ফিরে যান। তবে এক মাস আগে ‌ ‘অসুস্থ’ হয়ে পড়ায় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (র‌্যাব) তাকে জোর করে সম্মিলিত সামরিক হাসাপতালে নিয়ে যায়। তবে ফেরার বেলায় তিনি একাই ফিরেছেন।

গত মাসের শুরুর দিকে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সরকারের সঙ্গে তার মতবিরোধ দেখা দেয়। সব দল নির্বাচনে না এলে তাতে অংশ না নেওয়ার ঘোষণা দেন তিনি। এরই এক পর্যায়ে গত ১৩ ডিসেম্বর রহস্যময় অসুখে পড়েন সাবেক এই রাষ্ট্রপতি। তিনি আগ্রহী না হওয়া সত্ত্বেও র‌্যাব তাকে জোর করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যায়। তার কথিত উপদেষ্টা ববি হাজ্জাজ প্রেস কনফারেন্স করে এ দাবি করায় তাকে জোর করে দেশের বাইরে পাঠিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ রয়েছে।

হঠাৎ বেয়াড়া  হয়ে উঠা এরশাদকে বাগে আনতে না পেরে তাকে হাসাপাতালে রেখেই স্ত্রী রওশন এরশাদের নেতৃত্বে জাতীয় পাটিকে নির্বাচনে নিয়ে আসে সরকার। সবশেষ এরশাদ শপথ না নেওয়ার ঘোষণা দেন। বুধবার শপথ গ্রহণের প্রথম দিন তিনি শপথ নেননি। তবে শুক্রবার অনেকটা লোকচক্ষুর আড়ালে তাকে হাসপাতাল থেকে নিয়ে এসে শপথ পড়ানো হয়। রোববার শপথ নেয় নতুন মন্ত্রী পরিষদ। এরশাদকে করা হয় মন্ত্রী মর্যাদায় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত। সব পর্ব শেষ হয়ে যাওয়ার পর এরশাদের অসুস্থতার সনদ প্রত্যাহার করে নেয় র‌্যাব। আর তাতেই বাড়ি ফিরে আসার সুযোগ পান তিনি।