এখনো আশ্চর্য কিছু মালিক আছেন !

Kind_Businessmanস্বার্থের জন্য সব মালিকই নির্দয়। মুনাফা ছাড়া এদের কোনো লক্ষ্য থাকে না। যদিওবা কারো প্রতি এরা সদয় হন, তাও ওই মুনাফার জন্যই।

যতটা পারা যায় শ্রমিক শুষে সম্পদের পাহাড় বানানোর বাতিক থাকে এদের, থাকে না শুধু সাধারণ্যের সহজাত দয়া-মায়া। ন্যায্য মজুরির কথা না হয় না-ই টানলাম, প্রাপ্য প্রশংসাও করতে জানে না এরা।

এর ব্যত্যয় খুব কমই দেখা যায় বাস্তবে, আর সেই বিরল ব্যতিক্রমের নায়ক রেস্টুরেন্ট মালিক মাইকেল ডে বেয়ার। যিনি ১৯ বছর বয়সী রেস্টুরেন্ট কর্মচারী ব্রিট্টানি ম্যাথিসের চিকিৎসার জন্য নিজের রেস্টুরেন্ট বিক্রির ঘোষণা দিয়েছেন। খবর ইনফরমেশন নাইজেরিয়া ডট কমের।

জানা গেছে, ডে বেয়ারের পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া একটি রেস্টুরেন্ট আছে। টেক্সাসের মন্টোগমারির এই রেস্টুরেন্টটি তিনি ১৭ বছর ধরে চালিয়ে আসছেন। সম্প্রতি যখন জানতে পারলেন, তার কর্মচারী ম্যাথিস টাকার অভাবে নিজের চিকিৎসা করাতে পারছেন না তখন থেকে ৬ হাজার বর্গফুটের রেস্টুরেন্ট বিক্রির চেষ্টায় আছেন তিনি।

ম্যাথিস ২০০০ সাল থেকে ভয়ানক এক টিউমার নিজের মধ্যে বয়ে বেড়াচ্ছেন। এই টিউমার চিকিৎসার জন্য তার ২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দরকার। এতো টাকা তার পক্ষে যোগাড় করাটা অসম্ভব। তাছাড়া পরিবার-পরিজন বা আত্মীয়-স্বজনের মধ্যে এমন কেউ নেই যে এতো টাকা যোগাতে পারবে। ফলে গত ১৩ বছর ধরে টিউমারের মরণ-যন্ত্রণা সহ্য করে চলতে হচ্ছে তাকে।

টেক্সাসের একটি স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের বরাত দিয়ে ইনফরমেশন নাইজেরিয়া জানিয়েছে, ডে বেয়ারের বিশ্বাস তার রেস্টুরেন্টের মূল্য দুই মিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশি। এই রেস্টুরেন্ট বিক্রি করে টাকাটা ম্যাথিসের চিকিৎসায় লাগাতে চান তিনি।

উল্লেখ্য, ডে বেয়ারের স্ত্রী ছাড়াও ম্যাথিসের বয়সী দুই কন্যা সন্তান রয়েছে।