নির্বাচনে না এসে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করেছেন খালেদা: প্রধানমন্ত্রী

hasina

hasinaহাইকোর্টের নির্দেশে জামায়াতের নিবন্ধন বাতিল হওয়ায় তারা নির্বাচনে আসার যোগ্যতা হারিয়েছে। আর জামায়াত না আসায় বিএনপি নির্বাচনে আসে নি। তবে নির্বাচনে আসলে জামায়াত বিএনপির হয়ে নির্বাচনে অংশ নিত। তাই নির্বাচনে না এসে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করতে সাহায্য করায় খালেদা জিয়াকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শুক্রবার জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগ আয়োজিত সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় শেখ হাসিনা অভিযোগ করে বলেন, জাতির পিতার মৃত্যুর পর সামরিক শাসক জিয়াউর রহমান স্বাধীনতা বিরোধীদের বিচার কার্যক্রম বন্ধ করে তাদেরকে মন্ত্রীসভায় স্থান দিয়েছেন এবং রাজনীতিতে পুনর্বাসন করেছেন।

২০০১ সালে খালেদা জিয়া আবারও সেই ঘাতকদের সাথে নিয়ে জাতীয় সংসদকে কলঙ্কিত করেছেন। ক্ষমতায় এসে তারা ৭১ এর মত হত্যা, গুম, ধর্মীয় সৃখ্যালঘুদের নির্যাতন, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের রাজত্ব কায়েম করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে।

তারপর আমরা রাষ্ট্র ক্ষমতায় এসে যখনই দেশের মানুষকে শান্তি ফিরিয়ে দিয়েছি তখনই খালেদা জিয়ার মনে অশান্তির আগুন জ্বলে উঠেছে। দেশের মানুষ যখন শান্তিতে থাকে খালেদা জিয়ার মনে তখন অশান্তি থাকে।

তিনি আমাকে অভিশাপ দিয়েছিলেন আমি নাকি প্রধানমন্ত্রী দূরের কথা বিরোধীদলীয় নেত্রীও হতে পারব না। খালেদা জিয়া অভিশাপ দেন আমাকে আর লাগে তার গায়ে। আমি আলোচনার প্রস্তাব দিলে তিনি আল্টিমেটাম দেন।

মৌলবাদী সন্ত্রাসী জঙ্গিগোষ্ঠীর অপঘাত উপেক্ষা করে নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় তিনি দেশবাসী ও দলীয় নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

এসএসআর