বৃহস্পতিবার বাংলাদেশের ভাগ্য নির্ধারণ

Bangladesh + Srelanka Cricket

Bangladesh + Srelanka Cricketশ্রীলঙ্কান ক্রিকেট দল বাংলাদেশ সফরে আসবে কি না সেটা নির্ধারণ হবে আগামি বৃহস্পতিবার। দুবাইয়ে অনুষ্ঠেয় আইসিসির সভায় শ্রীলঙ্কা দলের সফর চূড়ান্ত হবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট দল বাংলাদেশে খেলতে আসলেই ক’দিন পরে বাংলাদেশ আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ (২০১৪) আয়োজন নিয়ে নিরাপত্তার বিষয় নিয়ে কোনো অনিশ্চয়তা থাকবে না। আর বাংলাদেশ তাদের নিরাপত্তার বিষয়টি এ সফরের মাধ্যমে প্রমাণ করতে পারলে বাংলাদেশেই হবে ক্রিকেটের দ্বিতীয় বৃহৎ আসর।

আইসিসির এই গুরুত্বপূর্ণ সভায় উপস্থিত থাকবেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ও নির্বাহী প্রধান নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন। আইসিসির সভায় যোগ দিতে বুধবার সকালেই তারা ঢাকা ত্যাগ করেন তারা। দুবাইয়ে অনুষ্ঠিতব্য আইসিসির একদিনের সভায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে আলোচনা হবে বলে জানিয়েছে বিসিবি। শ্রীলঙ্কা সিরিজ প্রসঙ্গে বিসিবি পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন বলেন,‘ আমরা আশা করছি আগামিকাল (বৃহস্পতিবার) শ্রীলঙ্কা সিরিজের বিষয় চূড়ান্ত হবে। আমাদের বিশ্বাস ২৪ জানুয়ারিতেই শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট দল ঢাকায় এসে পৌঁছবে।’

তিনি  আরও বলেন, ‘এশিয়া কাপ ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে শ্রীলঙ্কা সিরিজ আমাদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। শ্রীলঙ্কা সিরিজ হবে না এটা আমরা বিশ্বাস করি না। আমাদের বিশ্বাস শ্রীলঙ্কা সিরিজ হবেই। শ্রীলঙ্কা সিরিজের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের জন্য তাদের পরিদর্শক দল ২০ জানুয়ারিতে ঢাকায় আসার কথা রয়েছে।’ তাদের সফর শেষে শ্রীলঙ্কান দল যদি বাংলাদেশে খেলতে আসে তাহলে আমরা আমাদের নিরাপত্তার বিষয়ে প্রমাণ দিতে পারবো। আর আমরা তা সফলভাবে করতে পারলে বাংলাদেশে এশিয়া কাপ ও ওয়ার্ল্ড কাপ টি-টোয়েন্টি নিয়ে আর কেউ প্রশ্ন করতে পারবে না।

প্রসঙ্গত, শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল টাইগারদের বিপক্ষে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজ, দুই ম্যাচ টি-টোয়েন্টি ও তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। ২৭ জানুয়ারি মিরপুর শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথম টেস্ট দিয়েই শুরু হবে শ্রীলঙ্কা সিরিজ। তার আগে ২৮ জানুয়ারিতেই শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট দলের ঢাকায় পৌঁছার কথা রয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশের সাম্প্রতিক রাজনৈতিক সহিংসতা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বাংলাদেশে এসে ফিরে যাওয়া শ্রীলঙ্কা দলের বাংলাদেশে আসা অনিশ্চিত হয়ে পড়ে। একই সাথে বাংলাদেশে এশিয়া কাপ ও ওয়ার্ল্ড কাপ টি-টোয়েন্টি আয়োজন নিয়ে প্রশ্ন তোলে পাকিস্তানসহ কয়েকটি দেশ।

এইউ নয়ন/এআর