আর সব ছাপিয়ে মানবপ্রেমিক সালমান ?

Salman_Khanকখনো বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইন লঙ্ঘন করে, কখনো মদ্যপ অবস্থায় গাড়ী চালিয়ে মানুষ হত্যা করে, কখনো ধর্ম নিয়ে বিরুপ মন্তব্য করে সালমান খান খবরের শিরোনাম হয়েছেন। খুঁজে দেখলে এমন হাজারো নেতিবাচক খবর খুঁজে পাওয়া যাবে তারে নিয়েসেই তুলনায় তার মানবপ্রেমের দৃষ্টান্তগুলো নিয়ে খুব একটা সংবাদ হয়নি। ফলে এসব নেতিবাচক নিউজের আড়ালে ঢাকা পড়ে গেছে তার চরিত্রের উল্লেখযোগ্য মানবপ্রেমের দিকটি

অথচ, কারো বিয়েতে টাকা দিয়ে সাহায্য করা, কারো পড়ালেখার খরচ বহন করা, কারো চাকরির ব্যবস্থা করা, কারো চিকিৎসার জন্য হাত বাড়িয়ে দেওয়ার মতো তার মানবপ্রেমের প্রচুর ঘটনা আছেএই যেমন গতকাল ৬ জানুয়ারিও ১৪ বছরের বিজয়ের চিকিৎসার জন্য উঠেপড়ে লেগেছিলেন তিনি, হুইল-চেয়ার বন্ধি এই ছোট্ট ছেলের চিকিৎসার জন্য টাকা দেওয়া থেকে শুরু করে ডাক্তারের ব্যবস্থা করার পুরো দখলটাই পরম আন্তরিকতার সাথে পালন করেছেন এই বলিউড তারকা।

পুরো ঘটনাটা এরকম- সালমান যখন বান্দ্রার মেহবুব স্টুডিও থেকে কাজ শেষ করে গাড়িতে উঠতে যাবেন, ঠিক ঐ মুহুর্তে সাহায্য পাওয়ার আশায় গাড়ির জানলার পাশে এসে দাঁড়ান কৈলাশ চন্দন শিব নামের এক ব্যক্তিশুরু করেন তার দুঃখ-দুর্দশার বয়ান। গভীর আন্তরিকতা নিয়ে যথেষ্ট মনোযোগ দিয়ে তা শুনে যান সালমান। কৈলাশ জানান, তার ছেলে বিজয়ের পায়ের চিকিৎসার টাকা সংগ্রহের আশায় ছুটে এসেছেন নগরীতে, কিন্তু বছর দুয়েক সময় কেটে গেলেও টাকা সংগ্রহ করাটা আর সম্ভবপর হয়ে উঠেনি।

আরও অনেককেই এই দুঃখের কথা জানিয়েছিলেন কৈলাশ, কিন্তু সালমানের মতো আর কারও মন গলেনি, মানবিক বোধ টলেনি। ভেতরে ভেতরে ঘটনাটা সালমানকে এতোটাই বিচলিত করেছিলো যে, ঘণ্টা দুয়েকের মধ্যে বিজয়ের চিকিৎসার পুরো এন্তেজাম সম্পূর্ণ করে তবেই ক্ষান্ত হন তিনি।