পোশাক শিল্পে প্রণোদনা : আশ্বাসে শেষ অর্থমন্ত্রীর বৈঠক

পোশাক কারখানা
ছবি: ফাইল ছবি

গার্মেন্টসরাজনৈতিক অস্থিরতার ধকল কাটিয়ে উঠতে পোশাকশিল্প মালিকদের আর্থিক প্রণোদনার বিষয়ে এখনো সুনির্দিষ্ট কোনো অগ্রগতি হয়নি।

সোমবার এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিতের সঙ্গে বিজিএমইএ নেতাদের বৈঠক হলেও সেখান থেকে আশ্বাস ছাড়া আর কিছুই পাওয়া যায়নি।

বৈঠকে অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে শিগগিরই এ ব্যাপারে সিদ্ধান্তের কথা জানানো হবে।

সংগঠনটির সভাপতি গত সপ্তাহে অর্থসূচককে বলেছিলেন, ‘আমরা অর্থমন্ত্রীর কাছে উৎসে কর কমানোর দাবি করেছি। চলমান পরিস্থিতিতে পোশাক কর্মীদের বেতনাদি পরিশোধের জন্য নগদ অর্থ সহায়তার দাবিও জানিয়েছি।’

সোমবার অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনার বিষয়ে জানতে চাইলে সংগঠনটির সহ-সভাপতি রিয়াজ বিন মাহমুদ জানান, পোশাক শিল্পে বিদ্যমান উৎসে কর দশমিক ৮০ শতাংশ থেকে কমিয়ে দশমিক ২৫ শতাংশ করার জন্য বিজিএমইএ’র পক্ষ থেকে দাবি জানানো হয়েছে।

তবে কয়েক দিনের মধ্যে বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত জানানোর কথা বলেন অর্থমন্ত্রী। উৎসে কর কত হতে পারে এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, বিষয়টি সরকারের ওপর নির্ভর করছে। তবে কর হার ৫০ শতাংশ থেকে কমিয়ে দশমিক ৪ শতাংশ করা হতে পারে বলে তারা ধারণা করছেন। এ ক্ষেত্রে পরিমাণের বিষয়টি এখনও চূড়ান্ত হয়নি বলে জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, আমরা অর্থমন্ত্রীর কাছে নগদ অর্থসহায়তা চেয়েছি। চলমান পরিস্থিতিতে শ্রমিকদের বর্ধিত বেতন পরিশোধের জন্য এই সহায়তা চাওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, দেশের বিরাজমান রাজনৈতিক অস্থিরতা, একের পর এক হরতাল ও অবরোধে দেশের ব্যবসা খাত হুমকির মুখে পড়ে। এতে খুব বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় দেশের তৈরি পোশাকখাত। শিল্পে ব্যবহৃত আমদানি করা কাঁচামাল বন্দর থেকে কারখানায় পৌঁছানো দুরূহ হয়ে পড়ে।

ফলে রপ্তানি আদেশ বাতিলসহ নানা ধরনের ক্ষতি মুখে পড়ে পোশাক খাত। এই অবস্থায় শ্রমিকদের বর্ধিত মজুরি কাঠামোর বাস্তবায়ন, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ, সহজ শর্তে ঋণ গ্রহণ, উৎসে কর কমানোসহ নানা প্রণোদনার প্রস্তাব দেওয়া হয় ব্যাংক ও বিমা প্রতিষ্ঠানগুলোকে।

তবে তারা সহায়তার আশ্বাস দিলেও অর্থমন্ত্রীর কাছে সহায়তা বিষয়ে আলোচনার জন্য বিজিএমইএ’র নেতাদের পরামর্শ দেওয়া হয় ব্যাংকও বিমা প্রতিষ্ঠানগুলোর পক্ষ থেকে। কয়েক দফা আলোচনার পর এবার আবারও আশ্বাসের কথাই বললেন অর্থমন্ত্রী।

এসইউএম