ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রিসাইডিং অফিসারসহ ৫ জনের কারাদণ্ড

bbariaব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের সরাইল উপজেলার উচালিয়া পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে জাল ভোট প্রদান ও সহযোগিতা করার অভিযোগে ৩জন সহকারি প্রিজাইডিং অফিসারসহ ৫জনকে  বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছে স্পেশাল সিনিয়র সহকারি জজ মোঃ কামাল হোসেন শিকদার।

জাল ভোট প্রদানে সহযোগিতার অভিযোগে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাহারকারি উম্মে ফাতেমা ওরফে শিউলি আজাদকে ও উপজেলা যুবলীগ নেতা এড. আশরাফ উদ্দিন মন্তুকে আদালত অনুপস্থিত রেখে ৫ বছরের সাজা প্রদান করেন এবং এসব অনৈতিক কাজে সহয়োগিতার অভিযোগে ৩ জন সহকারি প্রিসাইডিং অফিসারকে গ্রেপ্তার করে তাদের প্রত্যেককে ৩ বছরের কারাদণ্ড দেন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার পরিবার পরিকল্পরা পরিদর্শিকা জোবেদা বেগম, সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার কোহিনুর বেগম ও প্রিজাইডিং অফিসার অরুয়াইল বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষিকা নাছিমা খাতুন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সরাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ এমরান হোসেন।

সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার মোঃ আবদুল হাকিম জাল ভোট প্রদানের দায়ে তিনজনকে আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি তারা কেউ আমাকে অবহিত করেন নি। আটকের পর জানতে পেরেছি। এ আসনে ৭ জন প্রার্থী থাকলেও প্রতিদ্ধন্দ্বীতা ছিল মূলত দুইজনের মধ্যে। তারা হলেন- জাতীয় পার্টির এ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী নায়ার কবীর। নির্বাচনে জাতীয় পার্টির এডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা ৩৭ হাজার ৫’শ ৮ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্ধন্দ্বী স্বতন্ত প্রার্থী নায়ার কবির পেয়েছেন ৩০ হাজার ৪৬ ভোট।