ফরিদপুরে ভোট পড়েছে ৪৮ শতাংশ

ফরিদপুর

Faridpurফরিদপুর-৪ (ভাঙ্গা-সদরপুর-চরভদ্রাসন) আসনে গতকাল সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। সকালে ঘনকুয়াশার কারণে ভোট কেন্দ্রগুলোতে ভোটারের উপস্থিতি কিছুটা কম ছিল। কিন্তু দুপুরের পর থেকে ভোটারদের সংখ্যা বাড়তে থাকে। এর মধ্যে নারী ভোটারদের উপস্থিতিই বেশি দেখা গেছে।

গতকাল বিকেল ৪টার পর থেকে ভোট গণনা শুরু হয়। এ সময় ভোট কেন্দ্রগুলোর বাইরে সমর্থকদের অপেক্ষা করতে দেখা গেছে।

ফরিদপুর জেলা প্রশাসক ও জেলা রিটারিং অফিসার আবু হেনা মোরশেদ জামান জানিয়েছেন, ফরিদপুর-৪ মোট ভোটারের ৪৪ শতাংশ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। এর মধ্যে ভাঙ্গা উপজেলা ৫৫ শতাংশ, সদরপুর উপজেলায় ৪২ শতাংশ ও চরভদ্রাসন উপজেলায় ৩৫ শতাংশেরও বেশি ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছে। এছাড়া সারাদিনে জেলার কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে নি।

ফরিদপুর-৪ আসনে নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। এই আসনে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফরউল্লাহর (নৌকা) বিপক্ষে স্বতন্ত্র প্রার্থী নিক্সন চৌধুরের (আনারস) মধ্যে লড়াই হয়।
জেলা নির্বাচন অফিসার মো. বজলুর রহমান জানান, ফরিদপুর-৪ (ভাঙ্গা-সদরপুর-চরভদ্রাসন) আসনে ১৬৬টি কেন্দ্রে তিন লাখ ২১ হাজার ৩’শ ১৯ জন ভোটার যার মধ্যে এক লাখ ৬২ হাজার ২৫৭ জন মহিলা ও এক লাখ ৫৯ হাজার ৬২ জন ভোটার।

প্রসঙ্গত, ফরিদপুরের চার আসনের মধ্যে ফরিদপুর-১ (বোয়ালমারী-মধুখালী-আলফাডাঙ্গা) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আব্দুর রহমান, ফরিদপুর-২ (নগরকান্দা-সালথা) আসনে সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, ফরিদপুর-৩ (সদর আসনে) আসনে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

কেএফ