আবারও একক আধিপত্য আ.লীগের

parlament
জাতীয় সংসদ: ফাইল ছবি

parlamentপ্রধান বিরোধী দল বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহন না করায় আবারও জাতীয় সংসদে একক আধিপত্য ধরে রেখেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। তবে এবার তারা বিরোধীদলের গতবারের আসনগুলো ভাগ করে দিয়েছে নিজেদেরই শরিক জাতীয় পার্টি ও অন্যান্য দলগুলোকে। ১৫৩টি আসনে  বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়  জয়লাভের পর রোববারের নির্বাচনে জয়লাভের মাধ্যমে নবম সংসদের ন্যয় এবারও আধিপত্য টিকে থাকলো তাদের।

রোববার রাত ৩.০০টা পর্যন্ত পাওয়া ফলাফলে দেখা যায় মোট ৩০০ আসনের মধ্যে ২৯১টিতে প্রকাশিত ফলাফলে আওয়ামী লীগ একাই ২৩২ আসন পেয়ে সংখ্যাগরিষ্ঠরতার জানান দিচ্ছে। আর ভাগ করে দেওয়া শরিক জাতীয় পার্টি ৩২টি পেয়ে প্রধান বিরোধীদল হয়ে আছে। বাকি ২৮টি পেয়েছে আওয়ামী লীগ থেকে বিদ্রোহী ও তাদেরই শরিক অন্যান্য দলগুলো।আর অবশিষ্ট যে ৯টি আসনের ফলাফল আসেনি তার প্রায় সবগুলোতেই এগিয়ে রয়েছে আওয়ামী লীগই। এরআগে নবম সংসদেও সংখ্যা গরিষ্ঠ আসনে জয়লাভ করেছিলো আওয়ামী লীগ

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত ফলাফলে আওয়ামী লীগের জয়ীরা হলেন,

গোপালগঞ্জ: গোপালগঞ্জ-০১ আসনে আওয়ামী লীগের মো. ফারুক খান এবং গোপালগঞ্জ-২ শেখ ফজলুল করিম সেলিম, গোপালগঞ্জ-৩: আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা ।

ঢাকা-৫: আওয়ামী লীগের হাবিবুর রহমান মোল্লা, ঢাকা-১৬: মো. ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লাহ, ঢাকা-১৫:  কামাল আহমেদ মজুমদার, ।

ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহ-৩ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মজিবুর রহমান ফকির ।ময়মনসিংহ-৬ (ফুলবাড়ীয়া) আসনে মোসলেম উদ্দিন, ময়মনসিংহ-১০ (গফরগাঁও) আসনে ফাহমি গোলন্দাজ, ময়মনসিংহ-১১ (ভালুকা) আসনে এম আমান উল্লাহ জয়ী হয়েছেন।

নেত্রকোনা: নেত্রকোনার তিনটি আসনেই আওয়ামী লীগ প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। নেত্রকোনা-১ আসনে ছবি বিশ্বাস, নেত্রকোনা-২ আসনে ফুটবলার আরিফ খান জয় এবং নেত্রকোনা-৩ আসনে বিজয়ী হয়েছেন ইফতিকার উদ্দিন তালুকদার পিন্টু।

মুন্সিগঞ্জ: জেলার দুই আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন। মুন্সিগঞ্জ-১ আসনে সুকুমার রঞ্জন ঘোষ ও মুন্সিগঞ্জ-২ আসনে জয়ী হয়েছেন সাগুফতা ইয়াসমিন।

মানিকগঞ্জ-১: জাসদের প্রার্থী আফজাল হোসেন খানকে হারিয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক নাঈমুর রহমান দুর্জয়।

মাগুরা-১: এ আসনে আওয়ামী লীগের মো. সিরাজুল আকবর, মাগুরা-২: আসনে নির্বাচিত হয়েছেন মনোনীত প্রার্থী বীরেন শিকদার।

নরসিংদী-১: আওয়ামী লীগের প্রার্থী নজরুল ইসলাম হিরু ও নরসিংদী-৩ আসনে  জহিরুল হক ভুঞা মোহন জয়লাভ করেছেন।

গাজীপুর-৪: এ আসনে সিমিন হোসেন রিমি জয়লাভ করেছেন।

নারায়ণগঞ্জ-১: এ আসনে আওয়ামী লীগের গোলাম দস্তগীর গাজী (নৌকা) জয়ী হয়েছেন।

টাঙ্গাইল-৫ আসনে আওয়ামী লীগের মো. ছানোয়ার হোসেন, টাঙ্গাইল-৬ আসনে  খন্দকার আবদুল বাতেন জয়ী হয়েছেন। জামালপুর-১ আসনে আওয়ামী লীগের আবুল কালাম আজাদ জয়ী হয়েছেন।
শেরপুর: শেরপুরের তিনটি আসনে জয় পেয়েছে আওয়ামী লীগ।শেরপুর-১ (সদর) এ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে  মো. আতিউর রহমান, শেরপুর-২ (নকলা-নালিতাবাড়ী) আসনে মতিয়া চৌধুরী, শেরপুর-৩ আসনে এ কে এম ফজলুল হক বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

 

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম-৩ (সন্দ্বীপ) আসনে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী মাহফুজুর রহমান। চট্টগ্রাম-৪ (সীতাকুন্ড) আসনে দিদারুল আলম। চট্টগ্রাম-১১ (পতেঙ্গা-বন্দর) আসনে আবদুল লতিফ, চট্টগ্রাম-১২ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সামশুল হক চৌধুরী জয়ী হয়েছেন। চট্টগ্রাম-১৩ (আনোয়ারা-পশ্চিম পটিয়া)  সাইফুজ্জামান চৌধুরী । চট্টগ্রাম-১৫ (সাতকানিয়া-লোহাগাড়া) আবু রেজা মোহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী, চট্টগ্রাম-১৬ (বাঁশখালী) আসনে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী।

খাগড়াছড়ি: আওয়ামী লীগের কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি আঞ্চলিক দল ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের প্রার্থী প্রসিত বিকাশ খীসাকে হারিয়েছেন।

কক্সবাজার-৪: আওয়ামী লীগের আবদুর রহমান বদি জয়ী হয়েছেন।

কুমিল্লা: কুমিল্লার সাতটির মধ্যে চারটিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন। কুমিল্লা-১ আসনে মোহাম্মদ সুবিদ আলী ভূঁইয়া। কুমিল্লা-৫ আসনে আবদুল মতিন খসরু, কুমিল্লা-৬ আসনে প্রার্থী আ ক ম বাহাউদ্দিন, কুমিল্লা-৯ আসনে  জয়ী হয়েছেন মো. তাজুল ইসলাম।

নোয়াখালী-৬: আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আয়েশা ফেরদাউস বিজয়ী হয়েছেন।

 

 

বরিশাল বিভাগের বরগুনা-১: আসনে আওয়ামী লীগের ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু ও বরগুনা-২ আসনে শওকত হাচানুর রহমান জয়ী হয়েছেন।

পটুয়াখালী-৩ আসনে  আওয়ামী লীগের আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইন।

ভোলা-২: আসনে আওয়ামী লীগের আলী আজম ও ভোলা-৩: আসনে আওয়ামী লীগের নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন জয়ী হয়েছেন।

বরিশাল-২ আসনে আওয়ামী লীগের তালুকদার মো. ইউনুস ও বরিশাল-৪ আসনে আওয়ামী লীগের পংকজ নাথ জয়লাভ করেছেন।

ঝালকাঠি-১ আসনে আওয়ামী লীগের বজলুল হক হারুন জয়ী হয়েছেন

 

রংপুর- আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনে  ও রংপুর-৪: আওয়ামী লীগের টিপু মুনশি জয়ী হয়েছেন।

ঠাকুরগাঁও-১: আসনে খাদ্যমন্ত্রী রমেশ চন্দ্র সেন বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

পঞ্চগড়-২: আওয়ামী লীগের মো. নুরুল ইসলাম জয়ী হয়েছেন।

লালমনিরহাট-১ আসনে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদকে হারিয়েছেন আওয়ামী লীগের মো. মোতাহার হোসেন।
দিনাজপুর-৬ আসনে জিতেছেন আওয়ামী লীগের মো. শিবলী সাদিক, ও দিনাজপুর ৪: আসনে মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার জয়লাভ করেছেন।

 

সিলেট-৪: গোয়াইনঘাট, জৈন্তা ও কোম্পানীগঞ্জ নিয়ে গঠিত এ আসনে সরকার দলীয় সাংসদ ইমরান আহমদ বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

মৌলভীবাজার-১: এ আসনে আওয়ামী লীগের মো. শাহাব উদ্দিন জাপার আহমেদ রিয়াজকে হারিয়েছেন।

সুনামগঞ্জ-১ আসনে আওয়ামী লীগের মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, সুনামগঞ্জ-৩ আসনে এম এ মান্নান, সুনামগঞ্জ-৫ আসনে মুহিবুর রহমান মানিক জয়লাভ করেছেন।

হবিগঞ্জ: জেলার তিনটি আসনের মধ্যে হবিগঞ্জ-৩ (হবিগঞ্জসদর-লাখাই) আসনে ক্ষমতাসীন দলের সাংসদ মো. আবু জাহির, হবিগঞ্জ-২ (বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ) আসনে আব্দুল মজিদ খান ও হবিগঞ্জ-৪ (চুনারুঘাট-মাধবপুর) আসনের মাহবুব আলী জয়ী হয়েছেন।

 

রাজশাহী-৬ আসনে জিতেছেন আওয়অমী লীগের শাহরিয়ার আলম।

পাবনা-১: স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শামসুল হক টুকু, পাবনা-৩: আওয়ামী লীগের মো. মকবুল হোসেন বেসরকারীভাবে জয়ী হয়েছেন।

গাইবান্ধা-২: আওয়ামী লীগের মাহাবুব আরা বেগম জয়ী হয়েছেন।

সিরাজগঞ্জ-৫ (বেলকুচি-চৌহালী) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আ. মজিদ মণ্ডল জয়ী হয়েছেন।

নাটোর-৩: আওয়ামী লীগের প্রার্থী জুনাইদ আহমেদ (পলক) নৌকা প্রতীক নিয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে আওয়ামী লীগের মুহা. গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস,

খুলনার ৩টি আসনের মধ্যে খুলনা-১: আসনে জয়লাভ করেন পঞ্চানন বিশ্বাস, খুলনা-২: আসনে মিজানুর রহমান মিজান ও খুলনা-৩: আসনে মুন্নুজান সুফিয়ান।

কুষ্টিয়া-৪: আব্দুর রউফ ও কুষ্টিয়া-৩: আসন থেকে শামসুল হক টুকু জয়লাভ করেছেন।

বাগেরহাট-৪: (মোরেলগঞ্জ-শরণখোলা) আসনে মোজাম্মেল হোসেন জয়লাভ করেছেন।

চুয়াডাঙ্গা-১: আওয়ামী লীগের সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

মেহেরপুর-১: এ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ফরহাদ হোসেন জয়লাভ করেছেন।

ঝিনাইদহ-১ আসনে আওয়ামী লীগের মো. আব্দুল হাই ওঝিনাইদহ-২ আসনে মো. সফিকুল ইসলাম জয়ী হয়েছেন।

চুয়াডাঙ্গা-১ আসনে আওয়ামী লীগের সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার বিজয়ী হয়েছেন।

 

জাতীয় পার্টি, জাসদ ও ওয়ার্কাস পার্টি থেকে কয়েকজন প্রার্থী জয়লাভ করেছেন। আবার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করেও অনেকে জিতেছেন। আওয়ামী লীগের হেভিওয়েট প্রার্থীদের সকলেই জয়ী হয়েছেন। তবে ঢাকা-৭ আসনে হেরে গেছেন আওয়ামী লীগের বর্তমান সংসদ সদস্য মোস্তফা জালাল মহীউদ্দিন। ঢাকা-১ আসনেও হেরে গেছেন বর্তমান সরকারের সাবেক গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী আবদুল মান্নান খান।

ঢাকা-১ আসনে জিতেছেন জাতীয় পার্টির সালমা ইসলাম। হেরে গেছেন আওয়ামী লীগের আব্দুল মান্নান খান। ঢাকা-৪ আসনে জাতীয় পার্টির সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, ঢাকা-৬ আসনে জাতীয় পার্টির কাজী ফিরোজ রশীদ, ঢাকা-৭ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হাজী মো. সেলিম  জয়ী হয়েছেন। হেরে গেছেন আওয়ামী লীগের মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন।

বরিশাল-৩ আসনে ওয়ার্কার্স পার্টির টিপু সুলতান জয়ী হয়েছেন।

বগুড়া-৪ আসনে জাসদের প্রার্থী এ কে এম রেজাউল করিম জিতেছেন।
মেহেরপুর-২ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মকবুল হোসেন  জয়ী হয়েছেন।

নড়াইল-২ আসনে ওয়ার্কার্স পার্টির শেখ হাফিজুর রহমান জিতেছেন।

সাতক্ষীরা-১ আসনে ওয়ার্কার্স পার্টির মুস্তফা লুৎফুল্লাহ  জিতেছেন।
ময়মনসিংহ-৭ আসনে জাতীয় পার্টির এম এ হান্নান জয়লাভ করেছেন।
নরসিংদী-২ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী কামরুল আশরাফ খান জয়ী হয়েছেন।
কিশোরগঞ্জ-৩ আসনে জাতীয় পার্টির মুজিবুল হক চুন্নু জয়ী হয়েছেন।
সিলেট-২ আসনে জাতীয় পার্টির মো. ইয়াহইয়া চৌধুরী  জিতেছেন।
মৌলভীবাজার-২ আসনে জাতীয় পার্টির  মহিবুল কাদির চৌধুরী জিতেছেন।
 

এইউ নয়ন