ঢাকা-৫ আসন : ভোটার না থাকলেও বাড়ছে ভোট

ছবি: ফাইল ছবি

Vote-Day__05.01.14--17ভিতরে সবাই নামাজ পড়ে।এখন যেতে পারবেন না একটু পড়ে যেতে হবে।কেন্দ্রে গণমাধ্যম কর্মীদের প্রবেশে বাধা দেওয়া হচ্ছিল এভাবেই নানা অযুহাতে। স্থানীয় আ ‘লীগ নেতা-কর্মীদের এমন আবদারের পরেও ভিতরে ঘটে গেল অস্বাভাবিক কর্মকান্ড।

দুপুর ২টা রইস নগর উচ্চ বিদ্যালয় ঢাকা-৫ আসনের ৭৮ নং কেন্দ্র। নেই ভোটারের উপস্থিতি। শুধুই নৌকা প্রতীকের সমার্থকদের অপাধ যাতায়াত।

ভোট কেন্দ্রের বুথের দরজা বন্ধ। ভেতরে কোনো ভোটার নেই। জানালা দিয়ে দেখা গেল কেউই নামাজ পড়ছে না। ব্যালট পেপার কাটায় ব্যস্ত পোলিং অফিসার।

কেন্দ্র থেকে বের হওয়ার পর মেরাজনগর এলাকার ভোটার আসাদুল বলেন, তার ভোট হয়ে গেছে। অথচ তিনি ভোট দেন নাই। ভোট না দিতে পেরে মনে কষ্ট নিয়ে বাড়ি ফিরে যাচ্ছি।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার উত্তম কুমার অনেকটা বিচলিত হয়ে বলেন, ভোট সুষ্ঠু এবং শান্তিপূর্ণ পরিবেশে হচ্ছে। এটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। আপনারইতো দেখলেন।

এ প্রসঙ্গ এড়িয়ে তিনি বলেন, দেখতেই পাচ্ছেন ভোটারের উপস্থিতি কেমন।

উল্লেখ্য, ঢাকা-৫: ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৪৮, ৪৯, ৫০ নং ওয়ার্ড ও ডেমরা-শ্যামপুরসহ যাত্রাবাড়ী থানার ডেমরা-দনিয়া-মাতুয়াইল-সারুলিয়া ইউনিয়ন মিলিয়ে এ আসন।

যথারীতি আওয়ামী লীগ প্রার্থী হাবিবুর রহমান মোল্লার বিপক্ষে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন তিনজন প্রার্থী। এর মধ্যে মালা প্রতীক নিয়ে তরিকত ফেডারেশনের আরজু শাহ সায়দাবাদী, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির আবদুর রশিদ সরকার কুঁড়েঘর প্রতীক নিয়ে এবং বাইসাইকেল প্রতীক নিয়ে লড়ছেন জাতীয় পার্টির (জেপি) মনির হোসেন কমল। এ আসনে অংশ নেওয়া চার প্রার্থীই মহাজোটের এ যেন আমরা আমরাই তোর মত।