৪’শ বছরের পুরনো সেতুর সন্ধান

Poyang-Bridge 2
ফাইল ছবি

চিনের বৃহত্তম হ্রদ পোয়াংয়ের নীচে লুকিয়ে থাকা মিং বংশের শাসনকালে তৈরি দীর্ঘ এক সেতু  আবিস্কার করেছেন গবেষকরা। এটাকে নিয়ে এখন তাদের উত্সাহের অন্ত নেই।

দেশটির শেষ রাজবংশের তৈরি এই সেতুর দৈর্ঘ্য ২ হাজার ৯৩০ মিটার। দীর্ঘ এই সেতুটি এত দিন লুকিয়ে ছিল জিয়াংসি প্রদেশের পোয়াং হ্রদের নীচে। খবর – ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমস ও চ্যানেল নিউজ এশিয়ার।

প্রতিবেদনে বলা হয়, জলস্তর কমে যাওয়ায় সেতুর পাথরের কিছু অংশ প্রথমে দৃশ্যমান হয়। শুরুতে ভাবা হয়েছিল ভাঙা পাথরের টুকরো, কিন্ত্ত কিছুদিন পরে জল আরও কমতেই দেখা গেল পাথরে তৈরি সেতুর ভগ্নাংশ।

গবেষকরা বলছেন, চিনের বৃহত্তম হ্রদের নীচে লুকিয়ে থাকা এই সেতু তৈরি হয়েছিল মিং বংশের শাসনামলে। ১৩৬৮ সাল থেকে ১৬৪৪ সাল পর্যন্ত শাসন চালিয়েছিলেন মিং বংশের শাসকরা। সেই সময়ই তৈরি হয় দীর্ঘ এই সেতু। গ্রানাইট পাথরে তৈরি এই সেতুর বেশ কিছু অংশ এত বছর পরেও অক্ষত রয়েছে।

উল্লেখ্য, পোয়াং হ্রদ দৈর্ঘ্য বেশ বড়ো। জলের জোগান কমে যাওয়া সত্ত্বেও হ্রদের আয়তন বর্তমানে ১,৫০০ বর্গ কিলোমিটারের মতো। কয়েক বছর আগে অবশ্য হ্রদটির আয়তন ছিলো প্রায় সাড়ে ৪ হাজার বর্গকিলোমিটার।

এস রহমান/