মানবেতর জীবন যাপন করছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার শিক্ষকরা

brammonbaria

brammon_bariaজাতীয়করণের এক বছর পরেও কোনও বেতন-ভাতা পাচ্ছেন না শিক্ষকরা। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার ৪২ টি রেজির্ষ্টাড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত ১৬৮ জন শিক্ষকরা এখনো কোনও বেতন-ভাতা পাননি।

প্রায় ৪ মাস ধরে বেতন-ভাতা বন্ধ থাকায় চরম বিপাকে পড়েছেন শিক্ষকরা। এছাড়া এসব শিক্ষক সরকার ঘোষিত মহার্ঘ্য ভাতা থেকেও বঞ্চিত রয়েছেন।

তথ্যে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত বছরের ৯ জানুয়ারি জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে বেসরকারি রেজিষ্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়কে সরকারিকরণের ঘোষণা দেন। ফলে দেশের অন্যান্য স্থানের মত নাসিরনগর উপজেলার ৪২টি বিদ্যালয়কে সরকারিকরণের আওতায় আনা হয়।

সরকার ঘোষিত নতুন বেতন স্কেল অনুযায়ী রেজিষ্টার্ড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতন পাওয়ার কথা। কিন্তু শিক্ষকরা চলতি বছরের আগষ্ট মাস পর্যন্ত তাদের পুরানো বেতন স্কেল অনুযায়ী বেতন উত্তোলন করেছেন এবং একই বছরের সেপ্টেম্বর থেকে অদ্যাবধি তাদের নতুন ও পুরানো বেতন বন্ধ রয়েছে। ফলে শিক্ষকরা তাদের পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন।

এবিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. হেমায়েতুল ফারুক ভুইয়া জানান, মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছি, মন্ত্রণালয় থেকে বেতন ভাতা বরাদ্দ পেলেই শিক্ষকরা বেতন পাবেন।

উপজেলা সদরের ধনকুড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মো. মনির হোসেন জানায়, উপজেলা সদরে ভাড়া বাসায় পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করলেও র্দীঘদিন ধরে বেতন না পাওয়ায় মানবেতর জীবন-যাপন করতে হচ্ছে।

এদিকে রেজিষ্টার্ড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা দ্রুত তাদের বন্ধ থাকা বেতন ভাতা প্রদানের জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানিয়েছেন।

কেএফ