বঙ্গজের শেয়ারের দাম ৩২৮% বেড়েছে

Price_Graph_030113পুঁজিবাজারে খাদ্য খাতের কোম্পানি বঙ্গজ লিমিটেড বড় চমক দেখিয়েছে। শেয়ারের মূল্য বৃদ্ধিতে আগের বছর দখল শীর্ষস্থান ২০১৩ সালেও ধরে রাখতে পেরেছে বিস্কুট উৎপাদক এ কোম্পানি।বিদায়ী বছরে এর শেয়ারের দাম বেড়ে চারগুণ হয়েছে।ডিএসইতে কোম্পানিটিরশেয়ারের দাম বেড়েছে ৩২৮ শতাংশ। মূল্য বৃদ্ধিতে শীর্ষ দশের তলানীতে থাকা ওসমানিয়া গ্লাসের শেয়ারের দাম বেড়েছে ১২১ শতাংশ।

আলোচিত বছরে ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে প্রায় ৬০ ভাগ কোম্পানির শেয়ারের দাম বেড়েছে।এ এক্সচেঞ্জ ২৪১ কোম্পানির শেয়ার কেনা-বেচা হয়েছে।এদের মধ্যে দাম বেড়েছে ১৪৮ টির,যার মধ্যে ১২ টির দাম ১০০ শতাংশের বেশি বেড়েছে।এ সময়ে ডিএসইতে দাম কমেছে ৯৩ কোম্পানির শেয়ারের।

পরিসংখ্যান অনুসারে,বিদায়ী বছরে ডিএসইতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দাম বেড়েছে সিভিও পেট্রোক্যামিকেলের।গত বছর এ শেয়ারের দাম বেড়েছে ২৯৫ শতাংশ।

তৃতীয় স্থানে থাকা রহিমা ফুডের দাম বেড়েছে ২৮৭ শতাংশ। শীর্ষ দশের অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে নর্দার্ন জুটের শেয়ারের দাম ২০৫ শতাংশ,আলহাজ্ব টেক্সটাইলের ১৭২ শতাংশ, কোহিনুর ক্যামিকেলের ১৪৬ শতাংশ,রহিম টেক্সটাইলের ১৩৬ শতাংশ, দেশ গার্মেন্টসের ১২৬ শতাংশ, অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজের ১২৪ শতাংশ এবং উসমানিয়া গ্লাসের শেয়ারের দাম ১২১ শতাংশ বেড়েছে।

কোম্পানিগুলোর সবগুলোই তুলনামূলক ছোট মূলধনের। আর এদের বড় অংশের মৌলভিত্তিও তুলনামূলক দূর্বল। বিশেষ করে সিভিও পেট্রোক্যামিকেল, রহিমা ফুড, নর্দার্ন জুট ও দেশ গার্মেন্টসের। সিভিও এবং রহিমা ফুডের উৎপাদন বন্ধ দীর্ঘিদন। এর মধ্যে সিভিও পেট্রো গত বছর লোকসান দিয়েছে। রহিমা ফুড এখন ভাড়ায় খাটছে। নর্দার্ন জুটও লোকসানে আছে। দেশ গার্মেন্টস গত কয়েক বছরের মধ্যে ৫ শতাংশের বেশি লভ্যাংশ দিতে পারেনি।