এসেক্স বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানসূচক ডিগ্রি পাচ্ছেন শিরীন শারমিন

shirin sharmin

shirin sharminবাংলাদেশের প্রথম নারী স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীকে নারীর ক্ষমতায়নে অবদানের স্বীকৃতিস্বরুপ ‘সম্মানসূচক ডিগ্রি’ দেবে যুক্তরাজ্যের এসেক্স বিশ্ববিদ্যালয়। ব্রিটেনের এই বিশ্ববিদ্যালয়টি জুলাই মাসে সুর্বণজয়ন্তী ও গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠান থেকে এই ডিগ্রি দিবে তাকে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপার্চায অ্যান্টনি ফরসটাররে সই করা এ সংক্রান্ত একটি চিঠি বুধবার শিরীন শারমিনের হাতে এসে পৌঁছেছে।

স্পিকার শিরীন শারমিন বলেন, এটা আমার জন্য অত্যন্ত সম্মানের। আগামি জুলাইয়ে এসেক্স বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠানে সম্মানসূচক ডিগ্রি দেওয়ার জন্য আমাকে তারা আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

শিরীন শারমিনের জন্ম ১৯৬৬ সালের ৬ অক্টোবর ঢাকায়। বাবা রফিকুল্লাহ চৌধুরী ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একান্ত সচিব। মা অধ্যাপক নাইয়ার সুলতানা বাংলাদেশ কর্ম কমিশনের সদস্য ছিলেন। ১৯৮৩ সালে ঢাকা র্বোড থেকে  মানবকি বিভাগে সম্মিলিত মেধা তালিকায় প্রথম স্থান অধিকার করেন তিনি। একই র্বোড থেকে মানবকি বিভাগে সম্মিলিত মেধা তালিকায়  দ্বিতীয় স্থান নিয়ে এইচএসসি পাস করেন।

১৯৮৯ সালে প্রথম শেণিতে প্রথম স্থান নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি (অর্নাস) এবং ১৯৯০ সালে প্রথম স্থান লাভ করে এলএলএম ডিগ্রি নেন শিরীন  শারমনি। এরপর উচ্চ শিক্ষার জন্য কমনওয়েলথ স্কলারশিপ নিয়ে যুক্তরাজ্যে যান তিনি।

১৯৯২ সালে বার কাউন্সিলের আইনজীবী হিসেবে তালিকাভুক্ত হন তিনি। এরপর ১৯৯৪ সালে হাইর্কোট বিভাগ ও ২০০৮ সালে আপিল বিভাগে অর্ন্তভুক্ত হন।

শিরীন শারমিন চৌধুরী পেশায় একজন আইনজীবী। পেশাগত জীবনে নারীর সম-অধিকারের জন্য কাজ করেছেন তিনি। সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্য হিসেবে এবারই প্রথম সংসদে আসেন তিনি। স্পিকার নির্বাচনের আগে তিনি মহিলা ও শিশু  বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ছিলেন।

২০০০ সালে যুক্তরাজ্যের এই এসেক্স বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই ‘রাইট টু লাইফ’ অভিসন্দের্ভের জন্য পিএইচডি ডিগ্রি পান স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী।

কেএফ