অবরোধের দ্বিতীয় দিনেও বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয় নেতাশূন্য

Aborodh_2nd_Dayনির্বাচন ঠেকাতে ও ‘মার্চ ফর ডেমোক্রেসি’ কর্মসূচিতে বাধা দেওয়ার প্রতিবাদে ১৮ দলের ডাকা টানা অবরোধের দ্বিতীয়  দিনেও রাজধানীতে মাঠে নেই বিএনপি এবং কেন্দ্রীয় কার্যালয়ও নেতাশূন্য। গতকালের মত আজও নিরুত্তাপ ও ঢিলেঢালাভাবে চলছে ১৮ দলীয় জোটের ডাকা অনির্দিষ্টকালের অবরোধ কর্মসূচি।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টায় রাজধানীর তোপখানা রোডে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া দেশের কোথাও বড় ধরণের কোনো পিকেটিং, নাশকতা ও সংঘর্ষের খবর পাওয়া যায় নি।

টানা অবরোধের কর্মসূচি দিলেও নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে কর্মসূচির কোনো চিত্র দেখা যায় নি। নয়াপল্টনে যানবাহন চলাচল ছিল স্বাভাবিক। ব্যক্তিগত গাড়ি চলাচল কম হলেও রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে গণপরিবহন চলাচল রয়েছে স্বাভাবিক।

অবরোধে যেকোনো ধরণের নাশকতার ঘটনা এড়াতে সড়কের প্রতিটি মোড়ে র‌্যাব-পুলিশ সতর্ক অবস্থান নিয়েছে। রাজধানীর অলি-গলিতে পুলিশ টহল দিচ্ছে।

এদিকে, নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নেই কোনো নেতাকর্মী। আশপাশের এলাকাতে নেই মানুষের ভিড়। আজ সকালে পুলিশ সন্দেহভাজন একজনকে কার্যালয়ের সামনে থেকে আটক করেছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়। নাশকতার আশংকায় নয়াপল্টন ভিআইপি রোডে গাড়ির শোরুমগুলোসহ দু’শতাধিক বেসরকারি অফিস ও দোকান পাট আজও খোলে নি। সরেজমিনে দেখা গেছে, রাজধানীবাসীর মনে অবরোধের আতংক বিরাজ করছে।

অফিসগামী শহিদুল বলেন, অবরোধে আতংক থাকলেও অফিসে যেতে হচ্ছে। অফিস তো আর অবরোধ দেখে না।

উল্লেখ্য, ১৮ দলের দেওয়া ‘মার্চ ফর ডেমোক্রেসি’ পণ্ড হওয়ার পর গত ৩০ ডিসেম্বর বিএনপি চেয়ারপারসনের আইন উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মাহবুব হোসেন এক সংক্ষিপ্ত সংবাদ সম্মেলনে অনির্দিষ্টকালের এ অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা দেন।