হিজাব ছাড়া নাচায় দোররা!

হিজাব ছাড়াই নাচছেন ইরানি তরুণ-তরুণী

হিজাব ছাড়া নাচের ভিডিও ইন্টারনেটে প্রকাশের অভিযোগে সম্প্রতি ৬ তরুণ-তরুণীর ৬ মাসের কারাদণ্ড হয় ইরানে। তাদের প্রত্যেককে ৯১টি করে দোররা মারারও নির্দেশ দেওয়া হয়। আর নাচটির ভিডিও পরিচালক সাসাশ সোলেমানিকে ১ বছরের কারাদণ্ড এবং সমপরিমাণ দোররা মারার নির্দেশ দেওয়া হয়। তবে আপিলে শর্তসাপেক্ষে সেই সাজা থেকে রেহাই পেয়েছেন তারা।

unvailed iranian dance
ওই ৬ তরুণ-তরুণীর ভিডিও নাচের একটি দৃশ্য

বৃহস্পতিবার মেইল অনলাইনের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, এপ্রিলে ওই ভিডিও ইউটিউবে প্রকাশের পরের মাসে তাদেরকে আটক করা হয়।
কর্তৃপক্ষের অভিযোগ, হিজাব না পরা ৩ তরুণী ওই ৩ তরুণের পাশে দাঁড়িয়ে তেহরানের রাস্তায় এবং ছাদে নেচেছেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভিডিওটির ক্যাপশন ছিল, আমরা ফ্যারেল উইলিয়ামসের ভক্ত এবং তার ‘হ্যাপি’ গানের খুশি ধরে রাখতে আমরা ভিডিওটি করেছি। আশা করছি, এটি আপনাদের একটু হলেও আনন্দ দেবে।

ওই তরুণ-তরুণীদের আইনজীবী ফারশিদ রফুগারান বলেন, এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার সুযোগ ছিল। গত সপ্তাহে তেহরানের একটি আদালতে আপিলের মাধ্যমে আমার ক্লায়েন্টদের কারাদণ্ড এবং দোররার শাস্তি তুলে নেওয়া হয়েছে। তবে তারা ৩ বছরের মধ্যে একই ধরনের কাজ করলে এই সুযোগ আর থাকবে না।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক আ্যমেনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের হেড অব ক্যাম্পেইন চম্পা প্যাটেল বলেন, ইতোমধ্যে ইরানি কর্তৃপক্ষ সব মত প্রকাশের স্বাধীনতা স্বাধীনতা কেড়ে নিয়েছে, স্যালেলাইট ডিশ ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে, ইন্টারনেটে ফিল্টারিং করেছে, শিল্পী, সাংবাদিক, নির্মাতা, পরিচালদের জেলে ঢুকিয়েছে।

তিনি বলেন, ইরানের উচিত এখনই এ ধরনের দমন-পীড়ন বন্ধ করা এবং এসব উদ্ভট মামলা থেকে তাদের অব্যাহতি দেওয়া।
প্রসঙ্গত,গত ফেব্রুয়ারি মাসজুড়ে চার্টের প্রথমে থাকা কেটি পেরির ‘কালো ঘোড়া’কে হটিয়ে মার্চের শুরু থেকে ‘হ্যাপি’ হলিউড চার্টের শীর্ষস্থান দখলে রেখেছিল।

প্রথম ২ সপ্তাহেই এই গান বিক্রির সংখ্যার হিসাবটা ৪ লাখ ছাড়িয়েছিল, ইউটিউবে এটির মিউজিক ভিডিও দেখা হয়েছিল ১০ কোটিবারের বেশি । বিলবোর্ডের পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের স্ট্রিমিংয়ে গানটির অবস্থান ছিল প্রথম কাতারে।

https://www.youtube.com/watch?v=tg5qdIxVcz8

ইউএম/