ইসির অনুমতি না থাকায় সমাবেশ করবো না : এইচ টি ইমাম

H t Emamআওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো-চেয়ারম্যান এইচ টি ইমাম বলেন, আমরা ২ জানুয়ারি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ নিয়ে আলোচনা করেছি। আমরা জানতে চেয়েছি নির্বাচনী আচরণ বিধি মেনে এ সমাবেশ করা যায় কি না। তবে ইসির পক্ষ থেকে সাড়া না পাওয়ায় আমরা আর সমাবেশ করছি না।

মঙ্গলবার নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) সাথে বৈঠক শেষে বেরিয়ে যাবার সময় সাংবাদিকদেরকে তিনি এসব কথা বলেন তিনি।

এইচ টি ইমাম বলেনৈ, কমিশন পরামর্শ দিয়েছে সমাবেশ না করার জন্য। কেননা নির্বাচনী আচরণ বিধি মোতাবেক এ সমাবেশ করা ঠিক হবে না। যে কোনো দলীয় নেতার জন্য আলাদা কোনো নিয়ম নেই বলে জানান কমিশন। তাই আমরা ২ তারিখের জনসভা করব না।

৫ তারিখের নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে হবে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে হবে এটা নিশ্চিত করে বলা যাবে না । তবে আমরা ভোটারদের নিরাপত্তার ব্যাপারে নিশ্চয়তা দেওয়ার চেষ্টা করব।”

বিচ্ছিন্ন কোনো ঘটনা ছাড়া শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। তিনি আরও বলেন, আসন্ন নির্বাচনে ৬৯টি জেলায় ভোট গ্রহণ হবে। এসব আসনে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে।

ভোটাররা ভোট দিতে আসবে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাংলাদেশের ভোটাররা খুবই সচেতন। তারা ভোট দিতে আসবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

অবরোধ এবং হরতাল দেশকে আস্থিতিশীল করার জন্য দেওয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি। এ বিষয়ে তিনি বলেন, তারা বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করতে চাচ্ছে। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি দেশকে অস্থিতিশীল করাই তাদের লক্ষ্য।

সমঝোতা হবে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, নির্বাচন হয়ে যাওয়ার পর আমরা আলোচনায় বসে সমঝোতার পথে হাঁটবো।

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা আগামি ৩ জানুয়ারি জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেবেন বলে জানান তিনি।

এ সময় তার সাথে ছিলেন সাবেক অর্থ উপদেষ্টা ডঃ মশিউর রহমান।

কবির/ এআর