শেষ হলো আয়কর রিটার্নের সময়, অর্জিত হয়নি লক্ষ্যমাত্রা

NBR_Taka

NBR_Takaইটিআইএনের দ্বারা নিবন্ধনের মাধ্যমে আয়কর বিবরণী বা রিটার্ন দাখিলের সময় শেষ হলো আজ । তিন দফা সময় বাড়িয়েও লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর)  নির্ভরযোগ্য সূত্র।

এনবিআর সূত্র আরও জানায়, এবার ১০ লাখ আয়কর রিটার্ন দাখিলের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে ১৬ সেপ্টেম্বর আয়কর মেলার মাধ্যমে ব্যক্তি শ্রেণির আয়কর দাখিলের প্রক্রিয়া শুরু করে এনবিআর। এর মধ্যে ২৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত আট লাখ করদাতা আয়কর রিটার্ন দাখিল করেছেন। দেশের অস্থিতিশীল পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করে কর আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা পূরণে এনবিআর আয়কর রিটার্ন জমা দেওয়ার সময় আগেই  ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে বাড়িয়ে ৩১ অক্টোবর, এরপর ১ ডিসেম্বর এবং সর্বশেষ ৩১ ডিসেম্বর করে। কিন্তু তিন বার করে সময় বাড়ানো হলেও লক্ষ্যমাত্রা এখনো ১ লাখ পিছিয়ে রয়েছে এনবিআর।

এনবিআর কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলাপ করে জানা যায়, চলমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে প্রথম থেকেই লক্ষ্যমাত্রা অর্জন নিয়ে যথেষ্ট শঙ্কা ছিল। স্বাভাবিক সময়ে অধিকাংশ রিটার্ন জমা পড়ে। কিন্তু এবার একটু ভিন্ন প্রেক্ষাপটে এবং ব্যবসায়ীসহ সব শ্রেণির মানুষের কথা বিবেচনা করে ব্যতিক্রম হলেও তিন দফা সময় বাড়ানো হয়েছে। তার পরও লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হচ্ছে না। আর দেশের রাজনৈকি অবস্থা ভালো না হওয়ায় এবং তিন দফা বাড়ানোর কারণে এখন আর বাড়ানো হচ্ছে বলে জানান এ কর্মকর্তা।

যারা আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে পারেননি তাদের বিষয়ে রাজস্ব বোর্ডের আয়কর বিভাগের সদস্য আমিনুল করিম বলেন, নির্ধারিত সময়ে যারা আয়কর রিটার্ন দাখিল করতে পারেননি তাদের জন্য আয়কর অধ্যাদেশ প্রযোজ্য হবে। রিটার্ন জমা না দেওয়ার পিছনে যৌক্তিক কারণ থাকলে তিনি কর অঞ্চলে আবেদন করে যেকোনো সময় তা জমা দিতে পারবেন।

প্রসঙ্গত,আয়কর অধ্যাদেশ অনুযায়ী,টিআইএনধারীদের আয়কর বিবরণী জমা দেয়া বাধ্যতামূলক।আয়কর বিবরণী না দিলে জেল ও জরিমানার বিধান রয়েছে আয়কর অধ্যাদেশে।নির্ধারিত সময়ে আয়কর বিবরণী জমা না দিলে এককালীন ১ হাজার টাকা এবং পরবর্তী প্রতিদিনের জন্য বাড়তি ৫০ টাকা হারে জরিমানার বিধান রয়েছে। তবে যৌক্তিক কারণ দেখিয়ে কেউ সংশ্লিষ্ট কর অঞ্চলের সহকারী কর কমিশনার বরাবর আবেদন করলে নির্ধারিত সময়ের পরও বিবরণী জমা নেয় এনবিআর।

নয়ন/এআর